Wednesday , 26 June 2019
এই মাত্র পাওয়া
Home » খেলাধুলা » আজ মুখোমুখি পাকিস্তান-উইন্ডিজ

আজ মুখোমুখি পাকিস্তান-উইন্ডিজ

ক্রীড়া ডেস্ক :

বিশ্বকাপের শুরুতেই জিভে জল আসার মতো একটি ম্যাচ দেখেছে ক্রিকেট বিশ্ব। যেটি হয়েছে ইংল্যান্ড ও দক্ষিণ আফ্রিকার মধ্যে। আজ বিশ্বকাপের লিগ পর্বে দ্বিতীয় ম্যাচে মুখোমুখি হবে পাকিস্তান ও ওয়েস্ট ইন্ডিজ।
ম্যাচটি শুরু হবে বাংলাদেশ সময় বিকেল সাড়ে তিনটায়। যা নটিংহ্যামের ট্রেন্ট ব্রিজ থেকে সরাসরি সম্প্রচার করবে গাজী টিভি, মাছরাঙা টিভি, স্টার স্পোর্টস ১ ও ২।
ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও পাকিস্তান ১৪ জুলাইয়ের ফাইনাল ম্যাচ পর্যন্ত যেতে পারবে সে বিষয়ে খুব কম মানুষই বাজি ধরবে। কিন্তু দুটি দেশের ক্রিকেটারদের রক্তেই রয়েছে বিশ্বকাপ। ওয়েস্ট ইন্ডিজের রয়েছে বিশ্বকাপ জয়ের জমকালো অতীত ইতিহাস। পাকিস্তানেরও রয়েছে তাই। কিন্তু উইন্ডিজ সবশেষ ওয়ানডে বিশ্বকাপ জিতেছে ৪০ বছর আগে। আর পাকিস্তান জিতেছে ২৭ বছর আগে।
অবশ্য ওয়েস্ট ইন্ডিজের বর্তমান দলের অনেকেই ছিলেন তাদের ২০১৬ সালের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ জয়ী দলে। সুতরাং এই দলটিও বিশ্বকাপের ফাইনালে যাওয়ার যোগ্যতা রাখে।
অন্যদিকে পাকিস্তান সবশেষ ২০১৭ সালে জিতেছে আইসিসি চ্যাম্পিয়নস ট্রফি। সেই দলের অধিকাংশ খেলোয়াড়ই রয়েছেন এবারের বিশ্বকাপ দলে। তাই এই দুই দলকে কেউ ফেভারিট না ভাবলেও তারা যোগ্যতা রাখে ফাইনাল খেলার। আর সেই মাহেন্দ্রক্ষণে যাওয়ার যাত্রাটা আজ বিকেলে শুরু হচ্ছে তাদের।
অবশ্য দল দুটির মধ্যে বেশ পার্থক্য রয়েছে। পাকিস্তানে হার্ডহিটার ব্যাটসম্যান কম। তবে ধারাবাহিক ও ঠাণ্ডা মাথার বেশ কয়েকজন ব্যাটসম্যান রয়েছেন। তারা বড় বড় ছক্কা হাঁকাতে না পারলেও রানের চাকা সচল রাখতে পারে। কয়েকদিন আগেই ইংল্যান্ডের বিপক্ষে টানা তিন ম্যাচে ৩৪০+ রান করেছে পাকিস্তানের ব্যাটসম্যানরা।
আর পাকিস্তানের পেস আক্রমণ বরাবরই সমীহ জাগানিয়া। তবে বিশ্বকাপের ম্যাচে মাঠে নামার আগে টানা দশ ম্যাচে হার মেনেছে পাকিস্তান। ২০১৭ সালে চ্যাম্পিয়নস ট্রফি জেতার পর ২৩ ম্যাচে মাঠে নেমে তারা জয় পেয়েছে মাত্র ৩টিতে! এমনকী বিশ্বকাপের প্রস্তুতি ম্যাচে তারা আফগানিস্তানের মতো দলের কাছেও হার মেনেছে। এই বৃত্ত থেকে আজ তারা বেরিয়ে আসতে পারে কিনা দেখার বিষয়।
অন্যদিকে ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলে রয়েছে মারকুটে ব্যাটসম্যান। তাদের অনেকেই আবার টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটের ফেরিওয়ালা। বিভিন্ন দেশের বিভিন্ন লিগে যারা ব্যাট হাতে তাণ্ডব চালিয়ে সুনাম কুড়িয়েছে। তারা মারকুটে ব্যাটিংয়ে সিদ্ধহস্ত। পাশাপাশি রয়েছে দারুণ পেস অ্যাটাকিং ইউনিট। সব মিলিয়ে দুটি দলের মধ্যে যে দারুণ একটা লড়াই হবে সেটা অনুমেয়।
উভয় দলেই বড় কোনো ইনজুরির সমস্যা নেই। যে উইকেটে খেলা হবে সেখানে টস জয়ী দল অবশ্যই আগে ফিল্ডিং করতে চাইবে। তাদের পেস আক্রমণ ব্যবহার করে সুবিধা নিতে চাইবে। দেখার বিষয় শেষ পর্যন্ত বিজয়ের হাসি কোন দল হাসতে পারে।

Leave a Reply