Friday , 20 September 2019
এই মাত্র পাওয়া
Home » অপরাধ » গাইবান্ধায় প্রেমিক যুগল আটক

গাইবান্ধায় প্রেমিক যুগল আটক


এইচ.আর.হিরু.গাইবান্ধাঃ
গাইবান্ধার পলাশবাড়ী উপজেলার হোসেনপুর ইউনিয়নের দৌলতপুর গ্রামে প্রেমিকযুগলকে অনৈতিক কর্মকান্ডের সময় উলঙ্গ অবস্হায় হাতে নাতে আটক করে স্থানীয় জনতা।
গাইবান্ধার পলাশবাড়ী উপজেলার শ্রীখন্ডি গ্রামের আব্দুর রাজ্জাকের বিবাহিত কন্যা অপরুপা সুন্দরী রানী আক্তার (১৮) সাথে একই ইউপি’র কিশামত চেরেঙ্গা গ্রামের আবুল কালাম (আবু কালামের) ভার্সিটি পড়ুয়া ছেলে অবিবাহিত সবুজ মিয়া (২২) দীর্ঘদিন থেকে পরকিয়া প্রেমে ও অবেধ মেলা মেশ চলে আসে যার নাম (ইন্টর কোর্স. মেয়ের ইচ্ছা পুরনে ছেলেকে বাধ্যকরা)।
গত শুক্রবার দিবাগত গভীর রাতে রানী আক্তারের পিতার বসতবাড়ীতে রানী বেগম ও সবুজ মিয়াকে অনৈতিক কর্মকান্ডের সময় হাতে নাতে আটক করে স্থানীয়রা। স্থানীয়দের খবরে ভোর রাতে থানা পুলিশের একটি টিম আটককৃতদের উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে।
আটককৃত রানী আক্তার ও সবুজ মিয়াকে পলাশবাড়ী থানা পুলিশ হেফাজতে রাখে বলে থানা সূত্রে জানায়। বিগত ২০১৭ সালে রানী আক্তারকে একই ইউপি’র দৌলতপুর গ্রামের মৃত ওহাব সরকারের ছেলে নাভানা কোম্পানিতে চাকরিরত রফিকুলের সাথে বিয়ে হয়। বিয়ের পর হতে রানী পিতার বাড়ীতে বসবাস করাকালে সবুজের সহ একাধিক যুবকের সাথে পরকিয়ায় জড়িয়ে পড়েযৌন লালসা চরিতার্থ করেমোনাক্ষি দেবীর সুখ ভোগ করতো ।
রানী জানায়.বিয়ার আগে থেকেই সবুজ মিয়ার সাথে তার ৩ বছর যাবৎ প্রেম ও মেলামেশা চলছিলো। এ প্রেমের ঘটনা জানা সত্বেও রানীর পরিবার কৌশল অবলম্বন করে তার বিয়ে দেয়। বিয়ে দিলেও সবুজের সাথে নিয়মিত যোগাযোগ ছিলো রানীর।
স্বামী রফিকুল.প্রেমিক সবুজ ও প্রেমিকা রানী আক্তারের পরিবার ঘটনাটিসমাধানের চেস্টা করে ব্যর্থ হয়।পরে তা মামলায় গড়ায়। এ ব্যাপারে রানী আক্তার বাদী হয়ে প্রেমিক সবুজকে আসামি করে শনিবার ২৫ মে পলাশবাড়ী থানায় একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করেছে বলে থানা সূত্রে জানা গেছে।এলাকা বাসি জানায় রানী একাধিক যুবকের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে যৌন লালসা করতো।

Leave a Reply