Friday , 15 November 2019
এই মাত্র পাওয়া
Home » আন্তর্জাতিক » মোদি বিরোধীদের নিয়ে মহাসমাবেশ করলেন মমতা

মোদি বিরোধীদের নিয়ে মহাসমাবেশ করলেন মমতা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : 

ক্ষমতাসীন বিজেপি তথা প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বিরোধীদের নিয়ে প্রথমবারের মতো বৃহত্তম সমাবেশ করলেন পশ্চিমবঙ্গে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। শনিবার এই সমাবেশ থেকে বিজেপির বিরুদ্ধে সর্বাত্মক লড়াইয়ের ডাক দিলো বিরোধীরা।
‘মোদি হটাও দেশ বাঁচাও’ স্লোগান তুলে মঞ্চে সামিল হয়েছিলেন শরদ পাওয়ার, অখিলেশ যাদব,  অভিষেক মনু সিঙ্ঘভি, বিএসপি নেত্রী মায়াবতির প্রতিনিধি সতীশ মিশ্র, চন্দ্রবাবু নাইডু, যশোবন্ত সিন্‌হা, অরবিন্দ কেজরিওয়াল, এইচ ডি দেবগৌড়া, ওমর আবদুল্লাহ, ফারুক আবদুল্লাহ, এম কে স্ট্যালিন, গেগং আপাং, হেমন্ত সরেনের মতো ভারতীয় রাজনীতির প্রথম সারির নেতারা। বিরোধী ঐক্যের এই মঞ্চে হাজির হন হার্দিক প্যাটেল, জিগ্নেশ মেবাণির মতো ভিন্ন ঘরানার ও তরুণ নেতারা।
২০১৯ সালের লোকসভা নির্বাচনের কথা মাথায় রেখে বিজেপি বিরোধী প্রায় সব শক্তির মধ্যে সমঝোতা তৈরির প্রয়াস বছর খানেক ধরেই চলছে। কখনো অখিলেশ বা কেজরিওয়ালের ডাকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ছুটে গিয়েছেন লখনৌ বা দিল্লিতে। কখনো সনিয়া গান্ধীর ডাকে দিল্লিতে বৈঠকে বসেছে বিভিন্ন বিরোধী দল। কখনও চন্দ্রবাবু নাইডু সচেষ্ট হয়েছেন। কিন্তু বিজেপি বিরোধী প্রায় সব দলকে এক মঞ্চে এনে এত বড় প্রকাশ্য সমাবেশ এই প্রথম।
সমাবেশে সব বক্তার কণ্ঠেই ছিল মজবুত বিরোধী ঐক্যের ডাক, দিল্লির মসনদ থেকে যে কোনো মূল্যে নরেন্দ্র মোদিকে সরানোর ডাক। সমাজবাদী পার্টির শীর্ষ নেতা অখিলেশ যাদব খুব স্পষ্ট করে বলেছেন, ‘বাংলা থেকে আজ যা শুরু হল, গোটা ভারতে এ বার তা-ই চলবে।’
বিপুল জনস্রোত দেখে সমাবেশে বয়ে যায় উচ্ছ্বাসের বন্যা। প্রথম উচ্ছ্বাস ব্যক্ত করেন তরুণতম বক্তা তথা এ দিনের সমাবেশের প্রথম বক্তা হার্দিক প্যাটেল। কিছুক্ষণ পরে ভিড়ের চেহারা দেখে একই রকম বিস্ময় ব্যক্ত করলেন আরএলডি প্রধান অজিত সিংহের ছেলে জয়ন্ত। পরে  অখিলেশ যাদব বলেন, ‘যত দূর পর্যন্ত চোখ যাচ্ছে, দেখছি শুধু মাথা আর মাথা।’ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ডাকা মহাসমাবেশ এ ভাবেই চোখ ধাঁধিয়ে দেয় ভারতীয় রাজনীতির রথী-মহারথীদের। আর কোনও প্রকাশ্য মঞ্চ থেকে এই প্রথম বার এত বড় কোনো রাজনৈতিক সমীকরণ।
বিরোধী জোট জয়ী হলে কে প্রধানমন্ত্রী হবেন সে ব্যাপারে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সোজাসাপ্টা বলেছেন,‘কে প্রধানমন্ত্রী হবে ভাবার কোনো দরকার নেই। নির্বাচনের পরে আমরা সবাই মিলে ঠিক করব, কে প্রধানমন্ত্রী হবেন। মোদি সরকারের এক্সপায়ারি ডেট এসে গিয়েছে।’

সূত্র : আনন্দবাজার ও এনডিটিভি অনলাইন

Leave a Reply